ফেরা

বৃষ্টিভেজা শেষ বিকেল, সবাই ছুটছে বাড়ির পানে; হয়তবা। তবে ছুটছে সবাই, নারী-পুরুষ-ধনী-গরীব নির্বিশেষে। তবে সবার ছুটে চলা কি একই রকম? ঢাকার পথে কেউ টেম্পুযাত্রী, কেউবা বাসে গুতোগুতি করে, কেউ রিকসাওয়ালাকে আকুন্ঠ অনুরোধ করে ওঠে, কেউ চালায় আলিয়ন, প্রাডো, বিএমডাব্লু। সবার ফেরা কি একই রকম? কেউ হয়ত কোনোদিন জানেনা অপরজনের অনুভূতিগুলো কেমন হয়। সবাই ছুটে, হয়ত কোনো লক্ষ্যে, হয়ত কিছু পেতে, হয়ত কিছু না পেয়ে, না পাওয়ার বেদনায়; তবু ফেরার জন্য ছুটে। না ছুটলে কী হতো? আসলে না ছুটে উপায় নেই। এই পৃথিবী স্থবিরতা সহ্য করেনা। এমন ব্যস্ত বিকেলে সবাই যখন জীবিকার্জনের পালা শেষে বাড়ি ফেরে, আপনি পারবেন না পথের ধারে বসে থাকতে। সবকিছু ফেলে উদাস বসে থাকলে কিছু মানুষ আপনাকে এসে প্রশ্ন করবে। তারা আপনার চেয়েও বেশি স্থবিরতাকে আলিঙ্গন করে বেঁচে থাকা শক্ত মানুষ। তারা আপনাকে নিয়ে কৌতুক করবে না। হয়ত আপনাকে পথের ধারে পড়ে থাকতে দেখে একটা মাইক্রো কিংবা জিপের জানালা দিয়ে কিছু মানুষ দেখে আপনাকে নিয়ে তাচ্ছিল্যভরে কিংবা অশুচিমাখা কন্ঠে আলাপ করবে। যদিও হয়ত আপনাকে তারা চাইলে সাহায্য করলেও করতে পারতো– তাদের অর্থ ছিলো, সুযোগ ছিলো; ছিলো না ইচ্ছা।

খুব চকচকে একটা হোটেলে ঢুকে পানি খেতে চাইলে আপনি পাবেন না। সেখানে কিছু খেয়ে ফেলে বেরিয়ে আসতে চাইলে প্রচন্ড অপমান কিংবা ধিক্কার দিয়ে বের করবে যদি আপনি নিজেকে ‘অতটা ফালতু স্ট্যাটাসলেস লোক না’ প্রমাণ করতে সক্ষমও হন, নইলে উত্তমমধ্যম জোটাও অস্বাভাবিক নয় বরং নিতান্ত আশাপ্রদই বটে। কিন্তু যদি পথের ধারে বুড়ি চাচিদের পাতিলে রান্না ভাত আর শাক-ডালের খাবারের দোকানে গিয়ে পানি খেতে চান; নিতান্ত সীমিত আয়োজন হলেও তারা আপনাকে বিনামূল্যে খেতে দিবে। আপনার অভাব, বিপদের কথা শুনে হয়ত আপনি সত্যিকারের অনুভবমাখা কিছু কথা শুনলেও শুনতে পারেন। অন্তত একটা আড়ম্বরপূর্ণ দোকানে যে মনুষ্যত্ব পাবেন না, তা খুব সম্ভব পথের ধারে পাবেন।

সম্পদ আর আভিজাত্য খুব সম্ভব মানবিক অনুভূতিগুলোকে মেরে ফেলে। অথবা, মানবিক অনুভূতির মৃত্যুই মানুষকে সম্পদের পেছনে দৌড়ানোর স্পৃহা দেয়। অথবা এমনও হতে পারে যে সম্পদের পেছনে ছোটার পথটাই মনুষ্যত্ব বিকিয়ে দেয়ার পথ। এভাবে হয়ত সূত্র দাঁড় করানো যায় না, কিন্তু এই দৃশ্যমান স্পষ্ট বিষয়গুলোকে উপেক্ষা করে ভাবাবেগে আপ্লুত হবারও সুযোগ নেই সবসময়।

০৭/০৬/২০১৬

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ব্লগর ব্লগর. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s