একটুখানি উদাস!


আপনাকে কেউ কি কখনো বলেছিলো “দাঁড়াও, আমি আসছি”; তারপর আসেনি? অথবা “তোমাকে আমি একটা চিঠি লিখবো” বলে আর লিখেনি? আমাকে বলেছিল। তারপর যখন আসেনি, আমার স্রেফ একটু উদাস লেগেছে। এর বেশীকিছুই না। যখন আর চিঠিটাও পাইনি, তখনো একটু উদাস লেগেছে।

আচ্ছা! আপনাকে কি কেউ কখনো খুব উৎসাহ দিয়ে অনেকদূরের পথে নিয়ে গিয়ে পরে একা ফেলে রেখে চলে এসেছিলো? আপনি হয়ত যেতেই চাইছিলেন না, কিন্তু আপনার সঙ্গীটি আপনাকে অনেক উদ্দীপনা দিয়ে নিয়ে গেলো পথ ধরে। অথচ হঠাৎ একসময় যখন পিছনে ফিরে চাইলেন, দেখলেন যতদূর চোখ যায় আপনি ধূ-ধূ পথের উপর একা! সে আপনাকে ফেলে চলে গেছে!

আপনাকে কি কেউ কখনো অনেক ভালোলাগার অনুভূতি দিয়ে তারপর অনেক বেশি কষ্ট দিয়েছিলো? যে কষ্টের পরে মনে হচ্ছিলো আপনার সমস্ত সত্ত্বাটাই ক্ষুদ্র, মিথ্যে, ভুল। আপনি হয়ত মানুষ হবার ন্যুনতম যোগ্যতাটুকুও রাখেন না! অথচ দিব্যি অনেক প্রগাঢ় ঘৃণা ছিটিয়ে দিয়ে সে হারিয়ে গেলো শেষে…

ব্যস! এরপর আর কিচ্ছু না। এরপরের অনুভূতিগুলো অনেকটা মহাকাশযাত্রার মতন। মহাশূণ্যে যাবার মুভিগুলোতে স্পেসশীপের ভেতর থেকে দূর-দূরান্তের গ্রহ-নক্ষত্রগুলোর দিয়ে তাকিয়ে বুক ভরে যেই শূণ্যতা আসে– কেবল অমন কিছু অনুভূতি। উদাস হয়ে তাকিয়ে থাকা কিছুটা হতবুদ্ধি হয়ে… প্রচন্ড শীতে হিম হয়ে আসা শরীরটার মতন অবশ হয়ে যাওয়া একদল অনুভূতিমালা। তারপর আবার সব অন্যরকম!

তাহলে এই কাহিনী বলার কারণ কী?
কোনো কারন নেই। স্রেফ বলতে ইচ্ছে হলো, এখনো রাস্তায় হাঁটতে গিয়ে, এখানে সেখানে হঠাৎ মনে পড়ে যায়, কেউ একজন আসবে বলে আসেনি। কেউ একজন আসবে বলে অনেক আয়োজন করেছিলাম, সে কিছু না বলেই হারিয়ে গেছে। তার পুরোনো চিঠিগুলোতে আছে সুন্দর অনেক কবিতা, সুন্দরতম শব্দমালা। তার রেখে যাওয়া স্মৃতিতে আছে মুগ্ধ করা অনেকগুলো মূহুর্ত। অনেক স্পন্দন…

আপনাকে যদি কেউ এভাবে উদাস না করে দেয়, ধরে নিন কেউ একজন আছে, যার আসার কথা ছিল কিন্তু আসেনি। অথবা যার একটা চিঠি লিখার কথা ছিল, লিখেনি। দেখুন, বুকের ঠিক মধ্যখানটাতে কেমন একটা দলা পাক লেগে যায়। দলাটা ঠিক কষ্টেরও না, কেমন যেন। কেমন যেন সবাইকে লুকিয়ে একলা রাতে বালিশে মুখ গুঁজে কাঁদতে মন চায়। কেমন যেন হাতের সব কাজ ফেলে দিয়ে স্টেশনের সেই ছায়ার নীচের কাঠের সিটটাতে একলা বসে উদাস হয়ে যেতে মন চায়। অথবা কেমন যেন পড়ন্ত দুপুরে শীতের পাতা পড়ে ঢেকে যাওয়া রাস্তায় শুকনো পাতাগুলোর উপর মর্মর আওয়াজ তুলে হাঁটতে হাঁটতে একলা একলা হারিয়ে যেতে মন চায়!

অথবা রাতের আকাশটার দিকে তাকিয়ে কোন এক অদ্ভূত প্রতীক্ষা! পেছনে ফেলে আসা কষ্টকর অনুভূতিগুলো যখন বুকের বাঁ পাশটাতে চিনচিন করে ব্যথা দেয়… অমন করেই একটু উদাস হয়ে অপেক্ষা করতে করতে রাতের অনেকখানি পার হয়ে যাওয়া।

অদ্ভূত, তাইনা? কোনো কষ্ট না থেকেও শুধু শুধু কষ্ট পাওয়া! আসলেই অদ্ভূত।

কৃতজ্ঞতাঃ যাযাবর আপুর লেখা এক চিমটি উদাস লেখা পড়েছিলাম অনেকদিন আগে। আজ লিখতে বসে আবার পড়ে লেখাটাকে নিয়েই এই হিজিবিজিটা লিখে ফেললাম…

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ব্লগর ব্লগর. Bookmark the permalink.

একটুখানি উদাস!-এ 8টি মন্তব্য হয়েছে

  1. যাযাবর বলেছেন:

    সম্মানিত বোধ করছি🙂

  2. পিংব্যাকঃ একটুখানি উদাস! (via আমার স্বপ্নময় জগত) « বোকা মানুষ

  3. নিঃশব্দতার ছন্দ বলেছেন:

    কয়েকদিন ধরে এমনিতেও মনটা ভাল যাচ্ছিল না। এই লেখাটা পড়ে আরও মনটা খারাপ হয়ে গেল। অসাধারন হয়েছে…

    • mahmud faisal বলেছেন:

      আমার উদাস ভাবটা পাঠকের মাঝে ছড়িয়ে গেলে ততখানিই সেটা ঠিক থাকতো, কিন্তু মন খারাপ করার লেখা তো আর লিখতে চাইনা! … লেখাটা পড়ার জন্য ধন্যবাদ

  4. Nure Alam Masud (@nure_alam) বলেছেন:

    আপনি কী করে এমন সব ব্লগ লেখেন, ভেবে পাই না ! আমি তো ইদানিং লিখতে গেলে নিজেকে ছিবড়ে বোধ করি, মনে হয় কোড ছাড়া বুঝি আর সবধরণের লেখাই ভুলে যাবো।

    লেখাটা পড়ে আমিও উদাস হয়ে গেলাম। সেই কবেকার লেখা — গুগল প্লাসে দিলেন বলে পড়া হলো।
    আমি বালিশে মুখ গুঁজে কাঁদতেও পারলাম না — কান্না আসলো না ! ক’জনের সাহস আছে সেসব কথা না-রেখে-ঢেকে বলে ? আমার নেই।

  5. misterious girl বলেছেন:

    লেখাটা ভালো লাগল। লম্বা রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাবার সময় দেখেছি চিন্তা ভাবনাগুলো খুব গুছিয়ে আসে এবং খুব তাড়াতাড়িই হারিয়ে যায়। আমার হঠাৎ হঠাৎ মনে হয় আমাদের পুরো জীবনটাই এভাবেই কখনো কারো অপেক্ষায় কখনো ক্লান্তিতে কেটে যাবার…. ভাবলে ভালো লাগে না।
    অর্থহীন লাগে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s