বছরের সেরা মাস আর একটা অসাধারণ নাশিদ


রামাদানের ১৮ দিন চলে গেলো। বছরের সেরা মাসটি চলেই যাচ্ছে। অনেকগুলো প্ল্যান ছিলো এই মাসের জন্য, বেশিরভাগই অপূর্ণ রয়ে গেছে। কিন্তু এখনো প্রায় ১২ দিন আছে, ভাবছি সেগুলো পূরণের জন্য চেষ্টা করতে হবে। কুরআন নাযিলের মাস এই মাহে রামাদান। এই মাসেই রয়েছে লাইলাতুল ক্বাদর যা কিনা হাজার মাসের চাইতে উত্তম।

সাওম পালন করছি সবগুলোই। কিন্তু সাওমের মূল উদ্দেশ্য যেই তাকওয়া অর্জন, তা কতটুকু অর্জিত হচ্ছে তা আল্লাহ রাব্বুল আলামীনই ভালো জানেন। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ বলেছেন,

হে ঈমানদারগণ! তোমাদের উপর রোজা ফরয করা হয়েছে, যেরূপ ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর, যেন তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পার।

(সূরা বাকারাঃ ১৮৩)

কুরআন সম্পর্কে যে কত কম জানি, তা মাঝে মাঝে কিছু নিয়ে কথা বলতে গিয়ে টের পাই। অথচ কুরআনে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন সব অত্যন্ত পরিষ্কার করে বলে দিয়েছেন– যাকে বলা হয় নির্দেশিকা। অনেক জানতে হবে, জীবনটাকে সুন্দর আর অর্থপূর্ণ করতে হলে। কুরআন তো সকল হিদায়াতের উৎস। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা বলেছেনঃ

রমযান মাসই হল সে মাস, যাতে নাযিল করা হয়েছে কোরআন, যা মানুষের জন্য হেদায়েত এবং সত্যপথ যাত্রীদের জন্য সুষ্পষ্ট পথ নির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী।

(সূরা বাকারাঃ ১৮৫)

একটা ভিডিও শেয়ার করি। আমার খুব প্রিয় একটা নাশিদ। শুনেছি, এটা আমাদের প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে নিয়ে লিখা হাসান ইবনে তাবিত (রাঃ) এর একটা নাশিদ ৷ অসম্ভব প্রতিভাধর হাসান ইবনে তাবিত (রাঃ) ছিলেন তার সময়ের একজন শ্রেষ্ঠ কবি ৷ আর নিঃসন্দেহে এই নাশিদটা ছিলো তার অন্যতম শ্রেষ্ট কর্ম,সুবহানাল্লাহ ৷ এই নাশিদটা যার কণ্ঠে, তিনি পরবর্তীতে কিছু উর্দু লাইন যোগ করেছেন মূল নাশিদটির সঙ্গে।
আশা করি ভালো লাগবে।


যারা আল্লাহর সন্তুষ্টির আশায় এরকম সুন্দর কিছু জিনিস রচনা করেছেন, তাদের আল্লাহ উত্তম বিনিময় দান করুন।

রামাদানের ফযীলত কত ব্যাপক, তা একটা হাদিস থেকে আমরা অনুধাবন করতে পারবো। হাশরের ময়দানে কঠিন হিসেবের সময় এই সাওম বা রোযা আমাদের জন্য সুপারিশ করবে, আর তা কবুল হবে। আল্লাহ আমাদের যেন সেই সুযোগ দান করেন।

  • হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ

    রোযা ও কোরআন কিয়ামতের দিন বান্দার জন্য সুপারিশ করবে। রোযা বলবেঃ হে আমার প্রতিপালক, একে আমি পানাহার ও যৌনাচার থেকে বিরত রেখেছিলাম। কাজেই তার সম্পর্কে আমার সুপারিশ শোন। আর কোরআন বলবেঃ আমি ওকে রাতের বেলা ঘুম থেকে বিরত রেখেছি, সুতরাং তার সম্পর্কে আমার সুপারিশ শোন। এরপর তাদের উভয়ের সুপারিশ কবুল করা হবে।

    — (আহমাদ, তাবরানী, হাকেম) [উৎসঃ আত তারগীব ওয়াত তারহীব– ৫৪৭]

  • হযরত আবু সাঈদ খুদরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ

    রমযানের প্রত্যেক দিনে ও রাতে আল্লাহ তায়ালা বহু ব্যক্তিকে দোযখ থেকে মুক্তি দেন। আর প্রত্যেক দিনে ও রাতে একটা করে দোয়া কবুল করা হয়।

    — (বাযযার) [উৎসঃ আত তারগীব ওয়াত তারহীব– ৫৫১]

রামাদানে দোয়ার তাৎপর্য পুরাই অন্যরকম! আল্লাহ রোযাদারের দোয়া কবুল করে থাকেন। আমরা নিয়মিত দোয়া করতে থাকবো, কবুল তো হবেই ইনশাআল্লাহ।


কিছু দারুণ লিঙ্ক


আল কুরআনের উপর অসাধারণ সাইটঃ তানজিল
কুরআন ডট কম
আমার সবচাইতে প্রিয় মিশারী আর আফাসীর কন্ঠে পুরো কুরআন পেতে ক্লিক করুন

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন এই রামাদানে আমাদের সবাইকে রহমত, মাগফিরাত আর জাহান্নাম থেকে নাজাত দান করুন। আমিন।

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ধর্ম. Bookmark the permalink.

বছরের সেরা মাস আর একটা অসাধারণ নাশিদ-এ 4টি মন্তব্য হয়েছে

  1. srabonsisir বলেছেন:

    লেখাটা পরে অনেক ভাল লাগলো। নতুন কিছু হাদিস সম্পরকে জানতে পারলাম।
    JazakAllah khair…

  2. তাপস বলেছেন:

    কোরানের ভালো বাংলা ভার্সানের লিঙ্ক চাই।

    • mahmud faisal বলেছেন:

      ভাইয়া, খেয়াল করিনি! অনেক দেরি হলো উত্তর দিতে।
      http://tanzil.info/
      এই সাইটে গিয়ে ট্রান্সলেশানে বাংলা ভাষা ক্লিক করলেই পুরো কুরআন বাংলায় পাবেন। আর পিডিএফ ভার্শনের খোঁজ এই মূহুর্তে মনে নাই। খেয়াল করে লিঙ্কটা রেখে দিবো পরে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s