চলে যাচ্ছি প্রিয় ক্যাম্পাসটাকে ছেড়ে

লিখতে ইচ্ছে করছিলো না ক’দিন ধরে… ভাবছিলাম যাক না সময়টা পেরিয়ে, শুধু শুধু তাকে নিয়ে ভাবাবেগে আপ্লুত না হলেই কি না? আজ দুপুরেই ইনশাআল্লাহ রওনা হয়ে যাবো বাসার উদ্দেশ্যে… যা কিছু নিয়ে এসেছিলাম, সব ফেরত নিয়ে চলে যেতে হবে…

গত কালকেই সমস্ত কাজ শেষ হয়ে গেলো… সবগুলো সার্টিফিকেট তুলে ফেললাম, সমস্ত দেনা-পাওনা মিটিয়ে দিলাম যেই মানুষগুলোর সাথে অনেকদিন ছিলাম তাদের… হল থেকে সিট বাতিল করেছিলাম বেশ ক’দিন আগেই, সমস্ত ল্যাব আর ডিপার্টমেন্ট, লাইব্রেরি, স্টোরে ঘুরে ঘুরে ক্লিয়ারেন্স সংগ্রহ করার কাজ…

হল আচমকা ফাঁকা করে দেয়ায় আমাদের বন্ধু-বান্ধব অল্প ক’জনকে পেয়েছি এই কয়দিনে… না হলে হয়ত বিদায়টা খুব বেশি কষ্টের হত… এমনিতেই ছোট ভাইদের ব্যবহারে ভালোলাগার বাক্স আমার পরিপূর্ণ হয়ে গেছে… এতটা ভালোবাসা পাবো– আশা করিনি।

এখন পৌনে নয়টা বাজে সকাল। খানিক আগে, আমার ফজলুল হক হলের ছাদে গিয়েছিলাম একটু হেঁটে আসতে। কেমন যেন বুকটা মোচড় দিয়ে উঠলো… এভাবে আর বসে থাকা হবেনা ছাদে। বৃষ্টিতে, মাঝরাতে, কারেন্ট চলে গেলে, সন্ধ্যায় সব বন্ধু মিলে ওখানটায় কত যে আড্ডা দিয়েছি!! এই জীবনটা বোধকরি জীবনের সবচাইতে সুন্দর সময় ছিলো… হয়ত এরকম স্বাধীনতা আর পাবোনা বলেই চোখে অশ্রু এসে জমা হয়েছে…

আমি চাইনি ভাবাবেগে আপ্লুত হতে, আমি চাইনি এভাবে অনুভূতিদের মাঝে ভেসে যেতে। কিন্তু এখন সহসাই কেমন অবাক লাগছে… চারটি বছর ধরে অনেক ভালোবাসা দিয়ে আমার চারপাশ, তার মানুষগুলোকে নিয়ে মিশে গিয়েছিলাম– সব বাঁধনই ছিন্ন করতে হবে!

বাঁধন খুব খারাপ… খুব বেশি খারাপ… শুধু অদ্ভূত ঘোরলাগা অনুভূতি দেয়, কষ্ট দেয়… এই ক্যাম্পাসটা যে অনেক ভালোবাসতাম তা গত ক’দিন ধরেই টের পাচ্ছিলাম। শেষ দিনে বিজন, রাতুল, অপু, আবীর, অর্ক, রনি, সৈকত, রানা, অরিন কে দেখে যাচ্ছি…

ছোটভাইগুলোর ব্যবহারে আমি স্তব্ধ, ভালোলাগায়। হয়ত মুখে বলতে পারিনা, কিন্তু হৃদয়ের গহীনে ভালোলাগাটুকু নিয়েই স্মরণ করবো যতদিন বেঁচে থাকবো… দূরে হয়ত চলে যাবোনা, কাল সিয়াম ফেসবুক অমন একটা কমেন্টই করলো– ইন্টারনেট থাকতে আর বিদায় বলে কিছু নাই। হয়ত মানুষগুলোর বিদায় নাই– কিন্তু ক্যাম্পাসটাকে ছেড়ে যাচ্ছি…

ক্যাফেটেরিয়া, মোমিন ভাইয়ের চায়ের দোকানটা, মেম্বারের দোকান, আমার হলের ছাদ, সামনের গাছের নিচে জায়গাটা, বড় মাঠটা, রাতের আকাশ, গাছগাছালিতে ভরা পথগুলো, মসজিদের পাশের পুকুরপাড়ে, মাঠের পাশের পুকুর পাড়ে– কত্ত কত্ত স্মৃতি!! কী করে ভুলি?

জীবনটাই এমন… ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র স্মৃতিগুলো জাপটে ধরে রাখে। জীবনের আর সমস্ত বিদায়ের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় জীবন শেষে ক্যাম্পাস থেকে বিদায় নেয়ার পার্থক্য অনেক বেশি। বিদায় খুব নিত্য একটা ঘটনা। কিন্তু যখন এরকম অবারিত স্বাধীনতা, আনন্দ, উচ্ছ্বাস আর ভালোবাসাময় জীবনটাকে বিদায় দিয়ে একটা তীব্র গতিসম্পন্ন জীবনের শুকনো, খটমটে জীবনের দিকে যাওয়া– তখন সেই অনুভূতিটা কখনও যিনি ফেস না করেছেন তাকে অনুভব করানো যাবে না…

থাকুক স্মৃতিগুলো হৃদয় গভীরে… সময় সময় একাকী স্মরণ করব… আমি জানি আমি স্মৃতিকাতরতায় ভুগবোই… ও আমার স্বভাব… আল্লাহ আমার এই সুন্দর স্মৃতিগুলোকে চিরজাগরুক করুন। এমন সুন্দর অনুভূতিগুলো বা তার চাইতেও সুন্দর অনুভূতি যেন জীবনভোর পাই!

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ব্লগর ব্লগর, স্মৃতিকথা. Bookmark the permalink.

চলে যাচ্ছি প্রিয় ক্যাম্পাসটাকে ছেড়ে-এ 8টি মন্তব্য হয়েছে

  1. potasiyam বলেছেন:

    এইতো সেদিন হলে উঠলাম; হলের পরিবেশ, বড় ভাইদের আপন করে নেয়া, জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং স্পর্শকাতর সময়গুলো তাদের সাথে শেয়ার করা, একসাথে কত আনন্দেই না কাটিয়েছি হল জীবন। এত তাড়াতাড়ি আপনাদের বিদায় দিতে হচ্ছে ভাবতেই খুব খারাপ লাগে। সময় এত দ্রুত চলে যায় কেন??? আর কয়েকটা দিন বেশি পেলে কি এমন ক্ষতি!

    কিন্তু সময় থেমে থাকবে না, আমাদেরকেও ঠিক একই ভাবে বিদায় নিতে হবে একদিন। সময়ের নিষ্ঠুরতা মেনে নেয়া ছাড়া আমাদের আর কিইবা করার আছে।

    খুব খুব খুব মিস করব। মন একদম খারাপ করবেন না। ফজলুল হক পরিবার ছেড়ে আপনি কিন্তু আপনার আসল পরিবারে ফিরে যাচ্ছেন :D।
    ভালো থাকবেন।

  2. এই তো জীবন … ভালো থাকুন ।

  3. তাপস বলেছেন:

    ভবিষ্যতে খুব বেশী গৃহপালিত হয়ে না গেলে (মনে হয় হবে না) আরও পরে, যখন সংসারের জোয়ালটা কাঁধে চেপে বসবে, মনে হবে এটাই সুন্দরতম জীবন ছিল। শুভেচ্ছা রইল পরবর্তী পর্য্যায়ের জন্য।

  4. শাহরিনা বলেছেন:

    হুমম। অনুভূতির প্রকাশটা দারুণ হয়েছে কিন্তু! অনেক বেশি দারুণ! ফিল করা যায়। অল দ্য বেস্ট ফর আপকামিং ডেইজ!

  5. mahmud faisal বলেছেন:

    সবার মন্তব্যই কয়েকবার করে এসে এসে পড়লাম… পড়েছিলাম…
    উত্তর দিতে ইচ্ছে করছেনা…
    ধন্যবাদ সবাইকে… অনেক ধন্যবাদ…

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s