ছিঁড়ে ফেলা সেই চিঠিটা


প্রিয় সুপ্রভা,
চারপাশের রাতের নিস্তব্ধতা বেড়ে চলেছে। ঝি-ঝি পোকারা ডাকছে অবিশ্রাম। এই অদ্ভূত এক ঘোরলাগা সময়ে আমার বুক ভারী হয়ে আছে। আজ তোমাকে খুব মনে পড়ছে আমার। এরকম অসহায় মূহুর্তগুলোতে আমি কী করব বলতে পারো? তুমি কি জানো যেই জীবনটাকে সময় সময় গুছিয়ে নিতে চাই সে কেন এত করে এলোমেলো হয়ে যায়?

আজ একটা পরীক্ষা দিলাম, জানো? পরীক্ষা এলেই আমার তোমার কথা বড্ড মনে হয়। তুমি শুধু আমাকে মনে করিয়ে দিতে যেন আমি কোন ক্রমেই আত্মবিশ্বাসটুকু হারিয়ে ফেলি। আমার এই বিশ্বাসটা কেমন যেন নড়বড়ে সে তো তুমি ছাড়া আর কেউ ভালো করে বুঝবে না। কী করে বুঝবে বলো? আমাকে কি কেউ আজ অবধি বোঝার চেষ্টা করেছে? আমি এমন তো কোন দুর্বোধ্য সুমেরীয় অথবা মিশরীয় লিপি নই, আমি হরপ্পাতে পাওয়া তাম্রলিপিও না, যার অর্থোদ্ধারের জন্য কোন ইতিহাস জানতে হবে। আমি একজন পরিপূর্ণ সরল মানুষ। একটু অভিমানী, কিন্তু তার চাইতেও বেশি বিনয়ী নই কি?

হাসলে একটু? না হেসো না প্লীজ। আমি সত্যি বলছি, বিশ্বাস কর। আমার শুধু এটুকু দ্বায়িত্ব নিতে পারবে না তুমি? আমিতো তোমার কাছে আর কিছু আবদার করবো না। যখন এলোমেলো হয়ে যাবো,একটু দক্ষ নাবিকের মতন আমার হুইলটা ধরে সামনের দিকে চালিয়ে দেবে, ব্যাস! আমিতো তোমার সমস্ত ভার আর দ্বায়িত্বটুকু নিতে রাজি হয়েই আছি। সেই যেদিন থেকে তোমাকে বেঁধেছি আমার জীবনটার সাথে, সেদিন থেকেই আমি মনে মনে প্রস্তুতি নিয়েই ফেলেছি। আচ্ছা, তুমিও কি আমাকে ভুল বুঝবে? তুমি কি আমার ভালোবাসার প্রতিটি মূহুর্ত উপলব্ধি করতে পারবে না? দিনে যে কত শতবার তোমার মুখটার কথা মনে পড়ে সেকথা কি একবারেও বুঝতে পারো? আচ্ছা, সেকথা বুঝি তোমাকে কয়ে দিতে হবে? তুমি জানো না আমার হৃদয়ের সমস্তটাতে জুড়ে বসে আছে যেই মুখখানি, সে শত সহস্রবার আমার অনুভূতিতে এক অদ্ভূত শীতল ভালোলাগা বইয়ে দেয়!

আমি অনেক উদ্ভট বকছি, তাইনা? আমার খুব খুব মন খারাপ। আমি কি করতে পারি বলতে পার? আচ্ছা, আমি যদি কখনও তোমাকে বলি, তোমাকে আমার একদম ভালো লাগেনা… তুমি কি ঠিক তখনই চলে যাবে আমাকে ছেড়ে? তুমি কি স্মরণ করে দেখবেও না আমার সমস্ত চিত্তজুড়ে কে খেলা করে অহর্নিশি…কতটা গভীর থেকে গভীরে তোমায় স্মরণ করি…কতটা অবলীলায় তোমার স্মৃতিগুলোকে নিয়ে নাড়াচাড়া করি আমার অবসরে.. তোমার অভিমানী মুখে হাসি ফুটলে যেই আনন্দ হয় আমার মাঝে, সেই ভালোলাগা আমাকে কতখানি প্রেরণা দেয়– এসব কখনই একটিবার ভেবে দেখবে না তুমি??

আমার খুব কাঁদতে ইচ্ছে করছে জানো? দূর আকাশের ওই কালপুরুষ আর সপ্তর্ষিমণ্ডলের পানে চেয়ে… রাতের এই নিস্তব্ধতা আর একাকীত্বে তোমাকে স্মরণ করে… এই মূহুর্তটাতে তোমাকে বড় অনুভব করছি… এই একা-একা লাগা অনুভূতিটাকে অসহ্যবোধ করছি… মনের ভেতর জমে থাকে অসংখ্য কষ্টকে কোথাও ফেলে দিতে পারছিনা…

তুমি চলে এসো তবে। আসবে না তুমি?


১৯ তারিখ, ২০১০
রাতঃ ১ টা ২৮ মিনিট

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in চিঠি, শুধু তোমার জন্য. Bookmark the permalink.

ছিঁড়ে ফেলা সেই চিঠিটা-এ 5টি মন্তব্য হয়েছে

  1. তারিক রিদওয়ান বলেছেন:

    কি আর বলব ভাইয়া???? আমাদের স্বপ্নের এই বোকা মেয়েগুলো আসলেই আমাদের খুব কষ্ট দেয়…….. 😦

  2. শাহরিনা রহমান বলেছেন:

    স্বপ্নবালিকারা সত্যি হয়ে আসুক…..খিক খিক।

  3. ছেড়ে চলে গেলেও আবারো ফিরে আসবে ক্ষনিকের মাঝেই …

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s