এলোমেলো ভাবনার শব্দচ্ছবি


আজ আবার বসে পড়েছি লিখবো বলে… কী লিখবো জানিনা। তবে জানি বুকের মধ্যে জমাট বেঁধে থাকা অপূর্ণতা, অস্বস্তি আর খটকাগুলো লেখালেখির মাধ্যমে হালকা হলেও উপশম হবে। এখন পরীক্ষার সময়, তাই প্রতিটি রুমেই অনেক নিস্তব্ধতা– পড়াশোনা চলছে। কারও কাছ থেকে একটু সময় চেয়ে নেব, তাও সম্ভব না। হয়ত একটু গল্পসল্প করলে এই খারাপলাগাটুকু সেরে যেতে দু’এক মূহুর্তও সময় নিত না!
আমি প্রতিদিন নতুন নতুন রূপে আবিষ্কার করি আমরা কত অদ্ভূত সৃষ্টি– মানুষ! প্রতিটি মানুষ ভিন্ন ভিন্ন প্রকৃতির… প্রত্যেকে আলাদা আলাদা স্বত্ত্বা… কারো চিন্তার সাথে অন্য কারো সাদৃশ্য নেই। অথচ প্রতি মূহুর্তে আমাদের এমন সব মানুষদের সাথেই চলতে হয়…

দু’দিন বাদে আমার compiler design পরীক্ষা। অনেকটুকুই পড়া বাকি। ইচ্ছে করছে না খুব বেশি করে খাটতে… একটা স্বপ্ন আর তাঁকে ছুঁতে চাওয়ার ইচ্ছার অনেক অভাব… কেন যে এই জিনিসটা অর্ডার দিয়ে পাওয়া যায় না! শুধু স্বপ্নচারী হতে ইচ্ছে করে… শুধু আবেগের জগতে না, পৃথিবীর প্রাপ্তির মাঝেও এরকম কিছু কাজ করত তবে…

এলোমেলো লিখছি অনেক কিছু… চলছে চলুক আঙ্গুলগুলো আমার। নতুন কী-বোর্ড কিনেছি– A4TECH এর… অনেকদিনের শখ ছিলো এই কী-বোর্ডটার জন্য। আমি এই তুচ্ছ ক্ষুদ্র সাড়ে তিনশ টাকার জিনিসটার জন্য সেইদিন এতটা খুশি হয়েছিলাম দেখে আমি নিজেই অবাক হয়ে গেছি! আসলেই ছোট ছোট জিনিস মানুষকে কতনা আনন্দ দেয়!!

আমার বড় আপুটার সাথে আমার আগে অনেক ঝগড়া হত। আসলে ঝগড়া না, আমিই ওকে অনেক বিরক্ত করতাম। কখনও কখনও আমার সাথে রাগ করে কেঁদেও ফেলত… আমি ঠিক জানতাম, ওর পছন্দের রজনীগন্ধা একমুঠো ধরে যদি সামনে নিয়ে গিয়ে বলি, “আপু, একটু গল্প করবা?” ও শুধু রাগ করে বলবে, “এখন কি কনভিন্স করতে এসেছিস?” ……
সত্যি কথা বলতে কি, যতদিনই এই কাজটা করেছি, এই কথাই বলেছে এবং প্রতিদিন কনভিন্স হয়েছে! ভালোবাসা এত সুন্দর জিনিস কেন? আমি আপুকে কখনই বলতে পারি নাই, আজও পারিনা যে তাকে আমি কতটা ভালোবাসি। অথচ আপু সারাটা জীবন আমাকে তার ভালোবাসায় সিক্ত করে চলেছে… আমি হয়ে চলেছি ক্রমাগত কৃতজ্ঞতাবোধে আবিষ্ট…

একবার হুমায়ূন সাহেবের বইতে তার সচরাচর উদ্ভট কথাবার্তার আড়ালে পড়েছিলাম,

পছন্দ অপছন্দের ব্যাপারটা মানুষ সহজেই ধরতে পারে…

এই জ্ঞানটি তিনি আমার মনেই প্রথম সঞ্চারিত করেছিলেন। তারপর থেকে আমি অনেক অবাক হয়ে খেয়াল করেছি আমি কেন যেন কোন মানুষের সাথে খানিকক্ষণ কথা বললেই ধরে ফেলতে পারি এই মানুষটা পছন্দ করে নাকি করেনা… হয়ত দীর্ঘদিন যাবত তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখার ফলেই এরকম হয়েছে…

হালকা লাগছে এখন সত্যি… থাক তবে। এবার চলেই যাই… হয়ত আবার কীবোর্ড হাতে বসে পড়ব ঝটপট কিছু লিখতে… এই A4TECH জিনিসটা সত্যিই ভালো! কী স্মুথলি চলছে তো চলছেই! আমার টাইপিং স্পীড তো বেড়েছেই, সেই সাথে টাইপিং এর প্রতি দেখি আগ্রহও তৈরি হয়ে চলেছে…

আল্লাহ, খুব চমৎকার করে পরীক্ষাটা দিতে পারার তৌফিক দিয়ো। তুমি চাইলে এটুকু সময়ে এর চাইতে অনেক কঠিন আর অসম্ভবকে সম্ভব করতে পারবো। সেইরকম যোগ্যতা আমাকে আমার ফেলে আসা জীবনে তুমি অনেকবার দিয়েছিলা… ইদানিং শুধু সেইটার অনেক অভাব পাই… কেন হয় এমন? তোমার সাথে আমার সম্পর্ক অনেক হালকা হয়ে গেছে বলে? আমি আবার পারবো না সেই সুন্দর সময়ের মতন হতে? যখন প্রতিদিন তোমার কথা মনে হত… ঠিক বন্ধুর মতন!

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ব্লগর ব্লগর. Bookmark the permalink.

এলোমেলো ভাবনার শব্দচ্ছবি-এ 6টি মন্তব্য হয়েছে

  1. Nasif বলেছেন:

    ভালো লাগলো পোস্টটা

  2. শাহরিনা রহমান বলেছেন:

    হুমমম! সবগুলো পোস্ট একসাথে পড়লাম। রাতেই কমেন্ট লিখতাম, কিন্তু কী বোর্ডটার টিক টিক সাউণ্ডে পাপা উঠে গেলে কাজটা খারাপ হত, তো, এখন বেশ ভেবে চিন্তে মন্তব্য …..(এহেম এহেম)

    অনেকের কাছেই শুনি, বড় ভাই বোনরা বেশ বিরক্তিকর হয়। এজন্য সবসময় সাবধানে থাকি, সামিলের মনে এরকম কোন ধারণা না জন্মে। তবুও মাঝে মাঝে মাত্রাতিরিক্ত জ্বালাতনে ঢুস করে ঝাড়ি মেরে বসি। তারপরেই আবার আদর করেটরে ঠিক করতে হয়। ঐ আপনার মতই কাহিনী আর কি! ভাইগুলো মনে হয় এইরকমই………:P😀

    পছন্দ অপছন্দ? নাহ, আমি এটা এত সহজে ধরতে পারি না। তবে আমার অপছন্দ হল মানুষের খুঁত ধরে সরাসরি তাকে জিজ্ঞেস করা, যেটা আমার ক্লাসমেটরা খুব করে। বিরক্ত লাগে….:D

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      একটানা এতগুলো কমেন্ট দেখেই বুঝলাম কয়েক সপ্তাহের কাজ একবসা তেই সেরে ফেলা হইলো…🙂 পছন্দ অপছন্দ মানুষ আসলেই সহজে বুঝতে পারে… আমি জীবনে হরদম এইটার উদাহরণ দেখতে পাই রে বোন… খেয়াল করে দেখিস। যেই বান্ধবীটা ক্লাসে তোকে একটু ভিন্নভাবে ট্রিট করে, তার আশেপাশে থাকলেই সেটা অনুভব করতে পারবি… আমি এটা সবসময় পেয়েছি!
      আর ভাইবোনদের মজাই তো এটা। বকাও হবে, আর ফলে অভিমানও হবে… আর সেই অভিমান ভাঙ্গাতে অনেক বেশি করে আদরও হবে!!🙂

  3. jajaborrr বলেছেন:

    choto choto jinish asholei manushke onek anondo dey…

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s