তুমি আমার পাশে বন্ধু হে বসিয়া থাকো


কি
ছু কিছু গানের একটা সম্মোহনী ক্ষমতা আছে। আমি এরকম একটা সম্মোহনের খপ্পরে পড়েছি। পরীক্ষা আর ক’দিন পর… এরকম একটা সময়ে কোন ধরনের নেশাই সাড়ে সর্বনাশ। অথচ আজ আমি সকালে উঠেই হঠাৎ কনক ও কার্তিক এর গাওয়া এই গানটি শুনে লুপ চালিয়ে দিয়েছি মিডিয়া প্লেয়ারে। চলছে তো চলছেই অনবরত… আমার শুনে আর তিয়াশ মেটে না!

বন্ধুকে পাশে বসে থাকার একটা আকুতি… আহা! কিছু কিছু জিনিস সময় সময় বড্ড রোমান্টিক বলে ফিল হয়… বড়ই আজিব মানুষের অনুভূতিগুলো…
কখনও রোমান্টিক, কখনও সে ক্ষিপ্র, কখনও সে বিষণ্ণ, কখনও সে ক্ষিপ্ত, কখনও উদাস, কখনও খুশি, কখনও আবার উচ্ছ্বাস… কত যে রকমফের!!

কিন্তু গানটির “বসিয়া থাকো, একটু বসিয়া থাকো” চরণটুকুর মাদকতা বড়ই অত্যাধিক!! আমার এতগুলো বন্ধুদের মাঝে বসবাস করি এখন… আর ক’টা দিন পর আমরা কে যে কোথায় চলে যাবো!! জানিনা আর কোনদিন এই বন্ধুগুলোর সাথে দেখাও হবে কিনা। আমি জানি, অনেকের সাথেই আর কখনও দেখা হবেনা। ক্যাডেট কলেজে ৬ বছর একসাথে থাকা অনেকের সাথেই আর দেখা হয়না– এটাই হয়ত জীবনের রীতি। মোবাইল ফোনটার জন্য, ইন্টারনেটের জন্য ইদানিং এই চিরদিনের মতন হারিয়ে যাওয়াটা হয়ত না হবার কথা…

তবু তো এত যে বন্ধন, এতটা ভালোবাসা, এত খুনসুঁটি, খেলাধূলা, ঘুরাঘুরি– আমরা আবার কোনদিন পারবো?? আর কি কখনও হবে আমাদের একসাথে পিকনিক করা, ট্যুর করা… চরম উচ্ছ্বাস নিয়ে অনেক অনেক আনন্দ করা… জীবনের তাগিদে একসময় হয়ত সবাই অনেক গম্ভীর হয়ে যাবো কমবেশি…

রাঙ্গামাটির লেকে আমাদের CSE 2K5 ব্যাচের একাংশ…

আমরা সবাই মিলে হাসিমুখে– চিম্বুক পাহাড়ের চূড়ায়, বান্দরবান, চট্টগ্রাম।


এমন করে তো আর হবে না… একসাথে সবাই মিলে…
বন্ধুরা, আমার আসলে প্রকাশ ভঙ্গিটা সুবিধার না… কখনও ধরে ধরে বলতে পারিনি তোদের বেশিরভাগকেই– তোদের কতটা ভালোবাসি…
ভালো থাকিস তোরা, যতদূরেই যাস… ভুলবনা আমাদের এই সুন্দর সময়টুকু… সবুজ, প্রাণের স্পর্শমাখা…

এখনি কানের কাছে বাজছে “বুকের মধ্যে বন্ধু একটা, নিশূণ্য অঞ্চল”…
বুকটা আসলেই শূণ্য হয়ে আছে এই মূহুর্তে… আচ্ছা, আমাদের অনুভূতিগুলো এত অদ্ভূত কেন? কেন কষ্ট কষ্ট লাগে? কেন? কেন?

গানটির লিরিক দিয়ে দিলাম…

তুমি আমার পাশে বন্ধু হে
বসিয়া থাকো
একটু বসিয়া থাকো
আমি মেঘের দলে আছি
ঘাসের দলে আছি
তুমিও থাকো বন্ধু হে
একটু বসিয়া থাকো…

রোদের মধ্যে রোদ হয়ে যাই
জলের মধ্যে জল
বুকের মধ্যে বন্ধু একটা
নিশূন্য অঞ্চল
আমি পাতার দলে আছি
ডানার দলে আছি
তুমিও থাকো বন্ধু হে
একটু বসিয়া থাকো…

মেঘের মধ্যে মেঘ হয়ে যাই
ঘাসের মধ্যে ঘাস
বুকের মধ্যে হলুদ একটা
পাতার দীর্ঘশ্বাস।

(কথা : ধ্রুব এষ)

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in গান, স্মৃতিকথা. Bookmark the permalink.

তুমি আমার পাশে বন্ধু হে বসিয়া থাকো-এ 14টি মন্তব্য হয়েছে

  1. akashlina বলেছেন:

    লেখাটা পড়ে স্কুলজীবনের কথা মনে পড়ে গেল।কত হাসি,কত দুষ্টুমি……কলেজলাইফে কেন যেন তেমন বন্ধুতা গড়ে উঠেনি কারো সাথে।

    আহারে…সেই ফেরারী সময়…ফিরে পেতে ইচ্ছে করে খুব…

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      আমার স্কুল জীবন তো ৬ বছর! (তারপর থেকেই কলেজ বলতাম😀 ) কলেজ জীবনে অনেক সুন্দর স্মৃতি আছে… কিন্তু এই ভার্সিটি জীবনের সাথে কোন কিছুরই তুলনা চলেনা…

      এই সময়টা এত্তো সুন্দর গেলো!! ইশশ… আজীবন মিস করবো… আল্লাহর প্রতি আমার অপরিসীম কৃতজ্ঞতা এই সুন্দর জীবনটার জন্য…

  2. নিবিড় বলেছেন:

    আমাদের সময়ও প্রায় শেষ হয়ে এল বলে প্রায়

  3. m@q বলেছেন:

    ভার্সিটিতে নিজের শেষ কয়েকদিনের কথা মনে পড়ে গেল।

    প্রতি সেমিস্টারে পরীক্ষা শেষ হয়ে গেলে, শেষ পরীক্ষা দিয়ে হল থেকে তাড়াতাড়ি বের হয়ে, বন্ধুরা সবাইই আনন্দে মেতে উঠতাম। অথচ সেই আমরাই যখন আইইউটিতে জীবনের শেষ পরীক্ষা দিলাম, হল ছেড়েছিলাম সবার শেষে… হঠাৎ করেই বুঝতে পারলাম যে আমাদের জীবনের সবচেয়ে আনন্দের চারটা বছর শেষ হতে কয়েকদিন মাত্র বাকী! যাদের সাথে এত ঘনিষ্ঠতা, জীবনের রূড় বাস্তবে তাদের সাথে কখনো দেখা হবে কিনা জানা ছিলনা।

    রুমমেট আর বেস্টফ্রেন্ড- এক জিনিস না, কিন্তু আমি ছিলাম সেই ভাগ্যবানদের একজন যাদেরকে রুমমেট আর বেস্টফ্রেন্ড- দুটো শব্দকে কখনো আলাদা করে দেখতে হয়নি। অথচ ভাগ্যের ফেরে আমরা তিন রুমমেট (বেস্টফ্রেন্ড) এখন তিনটা ভিন্ন দেশে বসে আছি!

    ছোট্ট একটা পরামর্শ… বন্ধুদের সাথে ভার্সিটির শেষদিন ক’টাকে এমনভাবে যপন কর যাতে করে অদূর ভবিষ্যতে যেন আফসোস শব্দটা মাথায় না আসে… ট্রাস্ট মি… এই সময় আর কখনো ফিরে আসবেন।

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      তানিম ভাইয়া… এম্নিতেই একটু ইমোশোনাল মতন ছিলাম ক’দিন ধরে…
      আপনার কমেন্টটা পড়ে বুকটা ভারী হয়ে গেলো… এই সুন্দর দিনগুলো সত্যি মিস করবো। এই স্বাধীনতা, এই বন্ধুগুলা… এই সুযোগ সুবিধা… এই খোলা আকাশ… এই বৃষ্টিতে ভেজা, এই রাতের আকাশ দেখে গান গেয়ে ছাদে শুয়ে থাকা…

      আর হয়ত হবে না😦

  4. হিমেল বলেছেন:

    মাহমুদ ভাই, সত্যি বলছি, আপনার কিছু লেখা পড়ে মনে হয়, আসলেই আমাদের প্রবাসের জীবনটা খুবই কষ্টদায়ক। অনেক কিছু থেকে বঞ্চিত, মাঝে মাঝে অনেক মিস করি দেশের বন্ধুদের।

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      কেন ভাইয়া? মজা মনে হয় সবখানেই হয়… আমি অনেক চাপা স্বভাবের মানুষ। সম্ভবত শুধু স্বভাবটার জন্যই আমার ব্যাচের সবগুলো বন্ধুদের চাইতে আমি অর্ধেক পরিমাণ আনন্দ করতে পারিনি… তবু যতটুকু প্রাপ্তি সেটাই আমার কেননা এই আমি তো আমিই…
      এই দেশটাতে থাকলে মজা কেননা সবই তো পরিচিত… প্রবাসের জীবনের কথা ভাবলে আমার বড্ড ভয় হয়… বিশেষ করে আমি বাংলায় সারাদিন কথা বলতে পারবো না ভাবলে শিউরে উঠি। হয়ত আরেকটু বড় হলে এসব ভাবনা বদলে যাবে আমার… লেখা পড়ার জন্য ধন্যবাদ ভাইয়া…🙂

  5. nbrchakma বলেছেন:

    প্রত্যেকের মনের কথা যেন বলে দিলেন, খুভ মিস করি আমি আমার স্কুল জীবনের বন্ধুদের। মাঝে মাঝে দু-এক জনের সাথে কথা হয়। সেই আড্ডার মজা কি ফোনের কথাই পাওয়া যায়?

    একন সবাই করম জীবন নিয়ে ব্যাস্ত। আমিও ভিন্ন নয়।

    ধন্যবাদ আপনাকে।

  6. শাহরিনা রহমান বলেছেন:

    গানটা দারুণ। কোন একটা প্রোগ্রামে শুনেছিলাম, কথাগুলো ভাল লেগেছিল, কিন্তু মনে রাখতে পারিনি।

    “মেঘের মধ্যে মেঘ হয়ে যাই
    ঘাসের মধ্যে ঘাস
    বুকের মধ্যে হলুদ একটা
    পাতার দীর্ঘশ্বাস।”

    হায়!

  7. fadedreamz বলেছেন:

    আমি এখনও যখন অফিসে যাই তখন মাঝে মাঝে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকি … চোখের সামনে সেই দিন গুলো ফ্লাশ ব্যাক হতে থাকে … সেই দিন গুলো আসলেই চির রঙ্গিন … সব কিছু ছেড়ে দিয়ে সেই দিন গুলোতে ফিরে যেতে আবার ইচ্ছে করে ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s