বুকেই জমে থাকা কিছু মনের কথা

জ বিজয়ের দিন। আজ আমাদের প্রাণের দিন। আজ বিজয় দিবস।

এটুকু লিখতেই বুকটা কেমন যেন ভারী হয়ে গেলো। আজ আমার বাংলাদেশের একটা দিন। একটা ইতিহাস, একটা আনন্দ, একটা চরম ত্যাগের স্মৃতিচারণ আজ। আজ হলো ১৬ ডিসেম্বর। কী অদ্ভূত কথা! লিখতে বসে দু’ফোঁটা অশ্রুও আমার সংগী হয়ে গেলো! কেন? আজ সেই দিনটি বলে। যেদিন আমরা মুক্তি পেয়েছিলাম এক অসম্ভব এক থাবার হাত থেকে। শত শত বছরের স্থায়ী হয়ে যাওয়া পরাধীনতার গ্লানি থেকে মুক্তি মিলেছিল এই দিনটিতেই তো!

সেই ১৭৫৭ সালে পলাশীর যুদ্ধে হারিয়ে গেলো স্বাধীনতা। দু’শো বছরেরে গোলামীর পর ১৯৪৭ সালের বিচিত্র দেশবিভাগ… তারপর আরেক অধ্যায়। শুরু হয় বৈষম্যের কলংকময় সেই ইতিহাস। ভাষায় অধিকারে প্রাণ দিয়ে বাংলাকে আদায় করে নিলো এই দেশেরই সালাম, বরকত, রফিকেরা। এরপর ১৯৭১ সালে পশ্চিম পাকিস্তানীদের ঘৃণ্য, জঘন্য হত্যাযজ্ঞ… দেশের তরে ভালোবেসে প্রাণ দিতে ঝাঁপিয়ে পড়া কিছু মহান মানুষদের… তারই হাত ধরে আজ আমরা এত্তো স্বাধীন!

লক্ষ শহীদের রক্তস্নাত বাংলার মাটি হয়ত আজও দেখেই চলেছে নোংরামি। শত বছরের পুরোনো মুক্তি মিলেছে বৈকি, কিন্তু প্রাণের মুক্তি তো মেলেনি! এখন হানাদারেরা দেহের ভিতরেই। কেউ সংবাদপত্রে বসে, কেউ ক্ষমতায় বসে, কেউবা সভা-সমাবেশে, কেউ প্রেসক্লাবে মাইক্রোফোনের সামনে, কেউ কলম হাতে সুশীল সমাজে বসে, কেউবা শিল্প বিকাশের নামে চালাচ্ছে জাতির উপর ধ্বংসযজ্ঞ। নৈতিকতা আর অনুভূতির হত্যা, ভালোবাসা আর সততার হত্যা। শুধু দুই-এক জনকে হত্যা নয়, পুরো একটা জাতিকেই হত্যা! কয়েক প্রজন্ম ধরে পঙ্গু করে দেয়া…

একটা কথা শুনেছিলাম ছোট থাকতে– “অযোগ্যের ভালোবাসার কোন মূল্যায়ন নেই”। আমি যোগ্যতা অর্জন করতে চাই। আমার দেশকে ভালোবেসে আমি ক্ষুদ্রতম কিছু হলেও করতে চাই আগামী প্রজন্মের জন্য, যারাও একসময় আমাদের মতন চারপাশ দেখবে। হয়ত গর্বে তাদের বুক ফুলে উঠবে, এক প্রজন্ম রক্ত দিয়ে দেশকে মুক্ত করেছিলেন, আরেক প্রজন্ম বুকভরা ভালোবাসা দিয়ে দেশকে গড়ে তুলেছেন… আমরা তো তাদেরই অনুসারী!


আমি ভালোবাসি আমার দেশকে। আমি প্রতি মূহুর্তে দেখতে চাই সুন্দর বাংলাদেশকে। এই দেশকে আমাদের প্রজন্মই গড়ে তুলবে ইনশাআল্লাহ। হে আল্লাহ, আমাদের শক্তি দাও যেন আমরা সুন্দর চরিত্রের কিছু মানুষকে প্রশাসনে পাই। আদর্শবান আর সৎ কিছু লোককে যেন নেতা করে পাই। আমরা যেন প্রাচুর্যের প্রতিযোগিতায় মোহাচ্ছন্ন হয়ে না পড়ি… আমরা যেন দুর্নীতি ভুলে যাই, যেন বেহায়াপনা থেকে রক্ষা পাই।

আজকের এই দিনে এই আমার প্রার্থনা। হে আমার দেশ, আমি তোমাকে ভালোবাসি বিশ্বাস করো। আমার শরীরের প্রতিটি রক্তবিন্দু তোমার কথা ভাবে। তুমি আমায় অনেক দিয়েছ। অনেক… আমার চোখের এই অশ্রুবিন্দুগুলো অন্য কোন কারণে নয়, শুধু তোমার ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে থাকায়… এত সুন্দর আকাশ, নদী-বিল-ঝিল, মেঠো পথ, বিনয়ী মানুষগুলো, পরোপকারী বন্ধুগুলো, আমার বাংলা ভাষা, আমার ধুলোমাখা পা, ঘাসের উপর উদাস বিকেল, তারাভরা রাতের আকাশ, ঈষদুষ্ণ গরমের দিনে ভাত খাওয়া আলসে দুপুর… এসব সবই তো তুমি ছিলে বলে এত সুন্দর।

হে আল্লাহ! আমি প্রতিটি নিঃশ্বাসে তোমার প্রতি কৃতজ্ঞ এই বাংলায় জন্মেছিলাম বলে।

(বিজয় দিবসের সকালে উঠে এলোমেলো অনেক জট পাকিয়ে ওঠা কথাগুলোকে পোস্ট করে দিলাম। আজকের এই দিন বলেই সাহস করলাম…)

ছবি কৃতজ্ঞতাঃ তুহিন

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in ব্লগর ব্লগর. Bookmark the permalink.

বুকেই জমে থাকা কিছু মনের কথা-এ 25টি মন্তব্য হয়েছে

  1. রকিব বলেছেন:

    “একটা কথা শুনেছিলাম ছোট থাকতে– “অযোগ্যের ভালোবাসার কোন মূল্যায়ন নেই”। আমি যোগ্যতা অর্জন করতে চাই। আমার দেশকে ভালোবেসে আমি ক্ষুদ্রতম কিছু হলেও করতে চাই আগামী প্রজন্মের জন্য, যারাও একসময় আমাদের মতন চারপাশ দেখবে। ”
    এই কথাগুলো অসম্ভব ভালো লাগলো।
    বহুদিন পর আপনার লেখা পড়লাম।

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      রকিব, আজ সকালে হঠাৎই খুব ইমোশোনাল হয়ে গিয়েছিলাম। অনেক কথা মনে হচ্ছিলো… তাই হয়ত লেখাটা হয়ে গেলো।
      হুমম, ইদানিং তেমন লেখা হয়না, ভালো লাগলো তুই এখানে পড়তে এসেছিস দেখে…🙂

      • দলছুটের গালগপ্পো বলেছেন:

        সিসিবিবাসী আপনাকে ভয়ানক মিস করতেছে। খালি কমেন্টে পোষাচ্ছে না, একটা পোষ্ট কি পাবো না সিসিবিতে???

        • Mahmud faisal বলেছেন:

          লজ্জা পেলাম রে পাগল! ভাই আমার লেখা তো হয়ই না।
          আর কেমন যেন লাগে সব……
          অনেক মানুষের সাথে আমার ভাবনাগুলোর অমিলটাই বেশি দেখি…

          শীঘ্রই পোস্ট দিবো সিসিবিতে…🙂

          • দলছুটের গালগপ্পো বলেছেন:

            মিল-অমিলের সমষ্টিই তো বৈচিত্র্য তৈরী করে ভাইয়া। আর প্রতিটা লেখকের দৃষ্টিভঙ্গি অবশ্যই ভিন্ন; সেক্ষেত্রে অমিলটাই কী স্বাভাবিক নয়?? এটা অবশ্য টের পেয়েছি যে, দীর্ঘ সময়ের জন্য আপনি বিরতি নিয়েছিলেন। শেষতক যখন ফিরে এলেন, তখন সিসিবি এবং আমাদের মতো আঁনাড়ি পাঠকদের কেন বঞ্চিত করবেন বলুন !!!!!!!!!!!!!

  2. রিজওয়ান বলেছেন:

    এমন বিন্দু বিন্দু ভালবাসায় গড়বে আমার সোনার দেশ।

  3. দোস্ত এত ভাল এই লেখাটা সিসিবিতে দিস না ক্যান?
    আর ছবিটা রকিবের ফেসবুক থেকে পাওয়া। ক্রেডিট দিতে চাইলে পিচ্চিটারে দে।

    তরে মেলা দিন দেখি না, ভাল আছস?

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      আসলে সবাই এতো ভালো লেখে যে গ্রুপ ব্লগে লেখা দিতে অস্বস্তি লাগে…
      আর আমিতো তেমন লিখিই না ইদানিং। এই লেখাটা তোর ভালো লেগেছে জেনে খুশি হইলাম।

      আছি দোস্ত, ভালোই। তুই তো ডিগ্রি নিয়াই ফালাইছস। আমি থিসিস নিয়া নিদারুণ সংকটে আছি রে!😦

  4. M Riyadh Sharif বলেছেন:

    ভাল লাগসে লেখাটা

  5. shetu zohra বলেছেন:

    বিজয় হয়েছে একটা ভূ-খন্ডের…এখনো আমরা জয় করতে পারিনি দারিদ্র্, সন্ত্রাস, নিরক্ষরতা…
    waiting for that ultimate victory..hope for the best..

  6. নামটা আন্দাজ করেন স্যার বলেছেন:

    এই লেখাটা অন্তত সিসিবিতে দেওয়া উচিত ছিল

  7. akashlina বলেছেন:

    অনেকদিন পর লিখলেন।
    ভারি সুন্দর পোস্ট! দেশপ্রেমে ভরপুর…

  8. Rony বলেছেন:

    মাহমুদ ভাইয়া,
    আপনাকে অ্যাডমিন বানিয়ে দিয়েছি। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ…

  9. স্রেফ বিজয়ের দিন বলেই এমন লেখা অনেকের কাছেই খানিকটা ন্যাকামো মনে হতে পারে। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে এমন ধারণা পোষণকারীদেরই সেরকম মনে করি। বিজয়ের দিনে মানুষ যদি আলাদাভাবে দেশের প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করে তাতে ক্ষতির কি আছে বুঝতে পারিনা।
    কি জন্য কথাটা বললাম ঠিক জানি না। বিজয় দিবসের কদিন আগেই এই ভারতীয় বন্ধুর কাছ থেকে খানিকটা বিদ্রুপ শুনে সাতসকালে তাকে লেকচার দিতে গিয়েই এত কথার অবতারণা। নতুন একটা অভিজ্ঞতা হল বটে।
    লেখাটা পড়ে প্রথম যা মনে হল, অত্যন্ত সারল্য মেশানো। কৃত্রিমভাবে যে মেশান তা বলব না, পড়লে অদ্ভুতভাবেই দেশের প্রতি ভালবাসার স্বরূপটা বেরিয়ে আসে। সহজ কথা তাহলে সহজেই বলা যায়!
    অনেকদিন আগে একটা কলাম পড়েছিলাম প্রথম আলোতে। সারমর্মটা এরকম, ” এক অধ্যাপকের মেয়ের সাথে দেখা করতে গেছেন এক শিক্ষক। ছোট মেয়ে, ৪ কি ৫ বছর। তাকে বলা হল সে বেড়াল নিয়ে ১৫ লাইনের একটা অনুচ্ছেদ লিখবে। সে তো আর অতশত বোঝে না, ১৫ লাইন গুণে গুণে লিখে দিয়েছে। চমৎকার লেখা, শিক্ষক প্রশংসাই করলেন। এর প্রায় ৫ কি ৬ বছর পর, মেয়েটা বেশ বড় ক্লাসে উঠে গেছে। তাকে আবার তিনি বললেন, বেড়াল নিয়ে একটা ২০ লাইনের অনুচ্ছেদ লিখে দিতে। মেয়েটা এবার আর শব্দ খুঁজে পায়না। বেড়ালের মত সাধারণ বিষয় নিয়ে রচনা লেখা তার মত এত কিছু পড়া মেয়ের পক্ষে আদৌ সম্ভব নয়! ”
    আমি সবসময় কোন কিছুকে খুব পছন্দ করলে সেটার প্রতি পছন্দের অনুভূতি প্রকাশ থেকে বিরত থাকি, আমার ধারণা ওতে পছন্দটা মূল্যহীন হয়ে যায়। এই যেমন, এই লেখাটা,দেশের প্রতি সাধারণ ভালবাসাটা খুব সরলভাবে বেরিয়ে এসেছে। কিন্তু যদি এটা কোন এক সময় কাজে না লাগে!? দেশের কোন বিপদে যদি এগিয়ে আসতে না পারি কোন কারণে? তখন তো এই লেখাটা মূল্যহীন হয়ে উঠবে, প্রবলভাবে বিদ্রুপ করতে শুরু করবে। দেশের প্রতি অধিক ভালবাসা সম্ভবত ঐ মেয়েটার মতই অবস্থা করে দেয়; যে, এত কিছু করে, অনুভব করে, শেষে এই দেশপ্রেম যদি মূল্যহীন হয়ে দাঁড়ায়..

    (লম্বা লম্বা কথা, বিরক্ত লাগল নিশ্চয়ই। তবে আমি কিন্তু নিয়মিত এভাবে লম্বা লম্বা মন্তব্য করে বিরক্ত করব। হা হা হা )

    • Mahmud faisal বলেছেন:

      অদ্ভূত! ছোট আপু, তুমি দারুণ একটা মন্তব্য করেছ!!
      সত্যি বলছি, আমি আমার ব্লগিং লাইফে এরকম সুন্দর আর বড় মন্তব্য পাইনি… খুব খুশি হলাম।

      খুশি হলাম কারণ যেকোন ব্লগার তার লেখা কেউ পড়লেই খুশি হয়। আর সেই লেখায় যদি এত্তো বড় চমৎকার কমেন্ট হয়, সেই আনন্দ তো অন্যরকম, তাইনা?😀

      আর লেখার ব্যাপারে বলব, অতশত বুঝিনা। আমি তখনই লিখতে বসি যখন আমার মধ্যে দারুণ একটা অনুভূতির ঝড় বয়ে যায়। আমি বিজয় দিবস নিয়ে লিখতে বসিনি। আমি বসেছিলাম ভোরবেলায় আমার অনুভূতি লিখতে। হয়ত ‘বিজয় দিবস’ তাতে এসে পড়েছে… আমি যে দেশকে ভালোবাসি সেটা তখনই চোখের অশ্রু দেখে অনুভব করতে পেরেছিলাম…

      যদি আমার এই ভালোবাসা সঠিক না হয়, তবে সঠিক কোনটা? আমি ভয় পাইনা যে! তুমি ওরকম সুন্দর করে ভাবো, আমিতো পারিনা। আমার ভিতরে অনুভূতিরা, ভালোবাসারা গুমরে মরে… আমার দেশের পরিস্থিতি দেখে অনেক সময়েই… তাই ওভাবে লেখা।

      আর আমার কথাগুলো মূল্যহীন কেন হবে! আমি এখন যখন লিখছি– তখন তো আমার এই ভাবনারা একদম জাগ্রত! তাতে তো কোন খাদ নেই…… তাই আর কি…

      এরকম সুন্দর সুন্দর কমেন্ট দিলে খুব খুশি হবো……😉
      কী বললে? বিরক্ত?? উহু! জীবনেও না!😀😀

  10. তাপস বলেছেন:

    ১৯৪৭ ভারতবাসী স্বাধীন হয়েছে। কিন্তু ১৬ই ডিসেম্বরকে আমরা বাঙালীর বিজয় দিবস হিসেবেই দেখি। শুভেচ্ছা রইল ভাই।

  11. rahat বলেছেন:

    nice post mahmud vai…:)..pore onek valo lagse…

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s