নিস্তব্ধ চেতনারা


আজ কয়েক ঘন্টা আগে বেইলি রোডে হয়ে যাওয়া একটা ছিনতাইয়ের ঘটনা আমাকে নাড়া দিয়ে গেল। এরকম খবর হরহামেশাই দেখি আমি, আমরা। খবরের কাগজে এই জাতীয় খবর অনেকটা অন্যান্য বিজ্ঞাপনগুলোর মতই স্বাভাবিক লাগে। একদম গা সওয়া। কিন্তু আজ নিরুপায় এক দম্পতির ঘটনার কয়েক মিনিট পরের করুণ আকুতি আর আহাজারি আমাকে অনেকটা এলোমেলো করে দিলো। কিছু অনুভূতিদের আমি নিস্ফল আক্রোশে জমা করলাম কাগজের পাতায়। একটু হয়ত শান্ত হলাম… কিন্তু তাতে কি পৃথিবীর কিছু উপকার করতে পারলাম? কোনদিন কি পারব না কিছু করতে???



জ আমার নিস্তব্ধ চেতনারা জেগে উঠতে চায়,
অবরুদ্ধ এই বিবেক চায় মুক্তি,
আমার সত্ত্বা চায় প্রতিবাদের ভাষা খুঁজতে,
দীর্ঘদিনের স্তিমিত কণ্ঠ হঠাৎ যেন গর্জে উঠে।

এ সমাজকে দেখছি যুগ যুগ ধরে,
স্মৃতি জুড়ে শুধুই এই দেশ,
দেখছি এই মানুষগুলোকে।
আর দেখে চলেছি এক ক্রমাগত ধ্বংস-যাত্রা।

আমি যেন দেখতে পাই ভবিষ্যতের সেই শবযাত্রা,
যেখানে পথের শেষে শুধুই আর্তনাদ।
যেন শুনতে পাচ্ছি অবিরাম কান্নার রোল,
আর ব্যাকুল দুখিনীর স্বজন হারাবার আহাজারি।
সেখানেই দেখতে পাই ধ্বংসস্তূপে পড়ে থাকা
ক্ষতবিক্ষত লাশ– সে আমারই মত কেউ।

তাইতো চাই চেতনাকে অবরুদ্ধ করে রাখতে।
চাইনা এই স্বত্ত্বা জেগে উঠে অনুভব করুক অসহায়ত্ব।
তাইতো দুই চোখে ঠুলি পরে ঘুরে বেড়াই–
যেমন থাকে সমাজের আর পঁচানব্বই ভাগ মানুষ।

রচনাকালঃ ১৮ মে,২০০৯
রাতঃ ১২টা ৩০ মিনিট

About mahmud faisal

Yet another ephemeral human being...
This entry was posted in কবিতা, স্মৃতিকথা. Bookmark the permalink.

নিস্তব্ধ চেতনারা-এ 3টি মন্তব্য হয়েছে

  1. akashlina বলেছেন:

    এরকম অনুভূতি আমার,আপনার ,ওনার,সবার হয় কিন্তু আমরা সবাই চোখে আসলেই ‘ঠুলি পরে ঘুরে বেড়াই’ তাই সমাজটা বদলায়না।
    কিন্তু সুখের কথা আপনার ‘নিস্তব্ধ চেতনারা জেগে উঠতে চায়’।আমি বলব জেগে উঠতে দিন-একবার।দেখবেন আপনার দেখাদেখি অনেকেই জেগে উঠবে।

  2. অন্ধকার পথের যাত্রী বলেছেন:

    শুধু চেতনা দিয়ে কিছু হবেনা, কাজ করতে হবে মাহমুদ সাহেব। আপনে যদি সেদিন প্রতিবাদ করতেন, তাহলে মনে হয় এই ঘটনা হত না, তা না করে আপনি দাড়িয়ে দাড়িয়ে দেখে চেতনা নিয়ে বাড়ি চলে আসছেন, আর সেইটা নিয়ে বসে বসে লিখেছেন এই আর কি। বাঙ্গালীর সবারই তো এই চেতনা আছে, তো এই চেতনা দিয়ে তো দূর হচ্ছে না দূর্মীতি ও আরও অনেক সামাজিক ব্যাধি, কারণ কারও কানে মনে হয় চেতনা গিয়ে দূষিত হয়ে গেচ্ছে আর যাদের মাঝে জীবিত আছে তারা লেখালেখি করে মনে করছে আমি বিশাল অবদান রেখেছি। মাফ করবেন যদি খারাপ কোন মতামত দিয়ে থাকি, শুধু মনকে আটকাতে পারলাম না, তাই এই মতামত না দিয়ে পারলাম না ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s